The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

Cassini মহাকাশযান থেকে পাঠানো শনিগ্রহ এবং এর দুটি উপগ্রহের অসাধারণ কিছু ছবি!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ শনিগ্রহ হচ্ছে সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ এবং এটি সূর্যের দূরত্ব থেকে এর অবস্থান ষষ্ঠ। শনিগ্রহ নিয়ে গবেষণা করতে নাসা Cassini একটি মহাকাশ যান পাঠায় যা সম্প্রতি শনিগ্রহ এবং এর দুটি উপগ্রহের অসাধারন কিছু ছবি পাঠিয়েছে।


Saturn-With-Its-Ring-Titan-600x561

শনিগ্রহে গবেষণার উদ্দেশ্যে Cassini মহাকাশযান পাঠানো হয়েছিল ১৯৯৭ সালে এটি শনির কক্ষপথে নিজের অবস্থান নেয় ২০০৪ সালে তখন থেকে Cassini বিভিন্ন ছবি ভিডিও পাঠানোর মাধ্যমে শনিগ্রহ সম্বন্ধে নাসাকে নানান তথ্য উপাত্ত দিয়ে যাচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার নতুন করে শনির দুটি উপগ্রহের ছবি সহ শনিগ্রহের বেশ কিছু দুর্লভ ছবি পাঠিয়েছে Cassini।

Globe-of-Saturn-From-NASAs-Cassini-Spacecraft

নাসার গবেষকরা ধারণা করেন শনির নিজের রয়েছে প্রায় ১৫০ টির মত উপগ্রহ এবং এসব উপগ্রহের মাঝে এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত হয়েছে ৬২ টি উপগ্রহের এদের মাঝে ৫৩ টির আনুষ্ঠানিক নামকরণ করা হয়েছে। এবারের Cassini এর পাঠানো নতুন ছবি সমূহ টাইটান এবং Enceladus নামের দুটি উপগ্রহের। টাইটান এবং Enceladus নামের এ দুটি উপগ্রহ সৌরজগতের যেকোনো উপগ্রহের থেকে আকারে বিশাল!

Southern-Hemisphere-of-Saturn

উপরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে শনিগ্রহের খুব কাছ থেকে ধারন করা ছবি এখানে শনির আকাশে থাকা বলয় সমূহ অনেকটা ঘূর্ণিঝড়ের ঘূর্ণনের মতই দেখাচ্ছে। তবে শনির ঈষৎ হলুদাভ রং এবং কিছু অংশে ধূসর নীল রং স্পষ্ট ফুটে উঠেছে।

Hazy-Atmosphere-of-Titan

উপরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে Cassini এর পাঠানো শনিগ্রহের উপগ্রহ টাইটানকে, টাইটানের এক পাশের অংশ আলো আধারিতে হারিয়ে গেছে এবং অন্য দিকে ধূসর হলুদাভ বাদামী রং দেখা যাচ্ছে। এই গ্রহে হাইড্রোকার্বন হ্রদ রয়েছে বলে গবেষণাযান জানিয়েছে।

Enceladus-Covered-in-Snow-Ice

উপরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে শনির আরেক উপগ্রহ Enceladus কে, এখানে Enceladus বরফ এবং তুষারে আবৃত, একে দেখে মনে হচ্ছে এটি একটি স্নো-বল। এর আবহাওয়া অত্যন্ত শীতল! ছবিটি ধারন করা হয়েছে মার্চ ২০১২ সালে।

এদিকে Cassini এর বিষয়ে নাসার গবেষকরা জানিয়েছেন Cassini পৃথিবী থেকে শনিগ্রহে গবেষণার জন্য যাওয়ার আগে আমরা জানতামই না আসলে সেখানে কি কি উপগ্রহ আছে এমন কি শনির উপগ্রহ টাইটানে যে হাইড্রোকার্বন হ্রদ রয়েছে সেই বিষয়েও আমাদের কোন ধারণা ছিলনা, তবে Cassini বর্তমানে আমাদের এসব বিষয়ে ধারণা দিয়ে যাচ্ছে।

বর্তমানে Cassini মহাকাশযানের ৪ ভাগেরও কম জ্বালানি রয়েছে যা দিয়ে বড়জোর এটি ২০১৭ সাল পর্যন্ত শনির বলয়ে অবস্থান করতে পারবে এবং পৃথিবীতে তথ্য পাঠাতে পারবে এর পরে ২০১৭ সালের দিকেই এটি শনিগ্রহের উপরেই ধ্বসে পড়বে।

সূত্রঃ দিটেকজার্নাল

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...