The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিমানে প্রস্তাব পেয়ে বিমানেই হলো বিয়ে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আমাদের সমাজে নিয়ম রয়েছে পারিবারিকভাবে বিয়ের প্রস্তাব আসে তারপর দেখাদেখি হয়। এরপর তারিখ নির্ধারণ করে হয় বিয়ে। তবে এবার এক ব্যতিক্রমি বিয়ে হলো বিমানের মধ্যে! বিমানেই প্রস্তাব পেয়ে বিমানেই সম্পন্ন হলো বিয়ে।

Air flight is proposing marriage

সত্যিই এক অনন্য বিয়ে! আকাশের বুকে বিমানে চড়ার পর পছন্দ এবং প্রস্তাব। তারপর সেই বিমানের মধ্যেই আবার বিয়ের অনুষ্ঠান! এমন কথা আগে কখনও শোনা যায়নি। তবে বিমানের অন্যান্য যাত্রীদের মধ্যেও বেশ আনন্দ দেখা যায়। কারণ এমন একটি বিস্ময়কর মুহূর্তের স্বাক্ষী হয়েছেন তারা।

ঘটনাটি হলো এমন। নাথালি এইচে নামের এক তরুণী। তিনি ছুটি কাটাতে ভিয়েনা হতে গ্রিসের অ্যাথেন্সে রওনা দেন। এমন সময় হঠাৎ করেই বিমানে কয়েকজন ব্রুনো মার্সের ‘ম্যারি ইউ’ গানটি গাইতে শুরু করেন।

নাথালি প্রথমে ভাবেন কেও হয়তো এভাবে নিজের মনের মানুষটিকে প্রেম নিবেদন করছেন। তবে সে যে তারই মনের মানুষ সেটা তিনি হয়তো কল্পনাও করেননি। হঠাৎ চোখ ফেরাতেই তিনি দেখেন তার বয়ফ্রেন্ড জারগেন বগনারই গানটি গাইছেন।

স্বভাবতই চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি নাথালি। এরপর জারগেন হাঁটু ভাঁজ করে বসে সিনেমা স্টাইলে নাথালিকে বিয়ের প্রস্তাব নিবেদন করেন। এভাবে শুরু হয় বিমানে বিয়ের গল্প। তারপর এলো বিয়ের পোশাক, দুটি রিং, একজন ভায়োলিন বাদক ও চটজলদি অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হলো ওই চলন্ত বিমানের মধ্যে।

এখানেই ঘটনার শেষ নয়; উভয় পরিবারের বেশ কিছু আত্মীয়স্বজন বিমানের পেছনের ছিটে নিজেদের আড়াল করে বসেছিলেন। পরে এগিয়ে এসে জমিয়ে দিলেন বিয়ের আসরটি। একটি ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে নাথালিকে শুভেচ্ছা জানালেন তার বাবা। আকাশে হঠাৎ বিয়ের আসরে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন নাথালি।

নাথালি ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘প্রত্যেকটি মেয়ে তার জীবনে এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করেন। ভাবতে পারিনি সত্যিই দিনটি এভাবে আমার জীবনে আসবে। কোন শব্দে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করবো তা আমি সত্যিই বুঝতে পারছি না।’

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...