The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভারতীয় সেনাদের হঠাতে চীন মাইক্রোওয়েভ অস্ত্র ব্যবহার করেছিলো

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সেদিন চীনের ‘মাইক্রোওয়েভ’ অস্ত্রের মুখেই পিছু হটতে বাধ্য হয় ভারতীয় সেনারা। এমন দাবিই করেছেন চীনা প্রফেসর জিন কানরং।

ভারতীয় সেনাদের হঠাতে চীন মাইক্রোওয়েভ অস্ত্র ব্যবহার করেছিলো 1

বেইজিংয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে পড়ানোর সময় বিষয়টি জানিয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের ওই প্রফেসর। তার দাবি হলো, মাইক্রোওয়েভ অস্ত্রের কারণেই ভারতীয় সেনারা মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং শেষ পর্যন্ত পিছু হটতে বাধ্য হয়।

ডেইলি মেইলের এক খবরে বলা হয়েছে, প্রফেসর জিন বলেছেন যে, ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক অস্ত্রের কারণে ভারতীয় সেনারা যেখানে অবস্থান করছিলেন সেটি মাইক্রোওয়েভ ওভেনে পরিণত হয়। এতে করে ভারতীয় সেনারা বমি করতে শুরু করে। এই অস্ত্রের ব্যবহারকে অসাধারণ হিসেবে উল্লেখ করে চীনা সেনাবাহিনীকে সমর্থন দিয়েছেন ওই প্রফেসর। তিনি জানিয়েছেন, এই পদক্ষেপের কারণে কোনো রকম গুলির ব্যবহার ছাড়াই নিজের স্বার্থ রক্ষা করতে পেরেছে চীনারা।

জানা গেছে, এই বছরের আগস্ট মাসেই ওই অস্ত্র ভারত সীমান্তে মোতায়েন করা হয়। ইতিপূর্বে সীমান্তে চীন-ভারত সংঘর্ষে নিহত হন কমপক্ষে ২০ ভারতীয় সেনা। এই সীমান্তের ৫৩ বছরের ইতিহাসে এটিই ছিলো সবথেকে রক্তক্ষয়ী সংঘাত। এরপরই চীন তাদের মাইক্রোওয়েভ অস্ত্র নিয়ে আসে সীমান্তে।

জিন তার শিক্ষার্থীদের আরও জানিয়েছেন, অস্ত্র মোতায়েনের মাত্র ১৫ মিনিটের মধ্যেই ভারতীয় সকল সেনা বমি করতে শুরু করে। তারা একেবারেই দাঁড়িয়ে থাকতেও পারছিল না। যে কারণে তারা ফেরত যায়। ঠিক এভাবেই চীন ওই এলাকা পুনরায় দখল করে নেয়। পুরোনো চুক্তির আওতায় ভারত এবং চীন সীমান্তে গুলির ব্যবহার নিষিদ্ধ। তবে সেপ্টেম্বর মাসে ফাকা গুলি ছোড়ার ঘটনাও ঘটে।

উভয় পক্ষই জানিয়েছে যে, এটি ছিল কেবরমাত্র সতর্কতামূলক ও পরিস্থিতির জন্য উভয় পক্ষই একে অপরকে অভিযুক্তও করেছিল। মাইক্রোওয়েভ অস্ত্র ডেভেলপ করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তবে চীনের বিরুদ্ধেই প্রথম বিশ্বের কোথাও শত্রুর বিরুদ্ধে এই অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ উঠলো।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...