নতুন পিসি ব্যবহারকারীদের জন্য গাইডলাইন

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ যারা নতুন কম্পিউটার কেনেন তারা অনেক সময়ই নানা ঝামেলাই পড়েন। কারণ কম্পিউটার সেটাপ করতে তাদের বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয়। এই অবস্থায় নতুন কম্পিউটার ক্রেতাদের কিছু ট্রিপস দেওয়া হলো। আশা করি উপকৃত হবেন। এই টিউটোরিয়ালে দেখানো হয়েছে একজন নতুন পিসি ব্যবহারকারী হিসেবে আপনি অপ্রয়োজনীয় সফটওয়ার বাদ দিয়ে কীভাবে আপনার উইন্ডোজকে গুছিয়ে রাখতে পারবেন। সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বিষয়গুলো শেয়ার করা হলো।


_562225

ড্রাইভার ইন্সটলেশন
আপনি যদি হন ব্র্যান্ডনিউ পিসি ইউজার তবে নতুন পিসি কেনার সময় বিক্রেতার কাছ থেকে আপনার প্রয়োজনীয় মাদারবোর্ডের ড্রাইভার সিডিটি বুঝে নিন, সেট আপ দেবার পর সিডিটি প্রবেশ করিয়ে ড্রাইভারগুলো আগে ইন্সটল করে ফেলুন। ছবিতে দেখুন মাদারবোর্ড সিডি’র একটি নমুনা দেখানো হয়েছে।

sshot-22

সেট আপ দেবার পরপর যেসব গুরুত্বপুর্ণ কাজগুলো সেরে নিবেনঃ
এই ধাপটি যারা জেনুইন উইন্ডোজ ব্যবহারকারী তাদের জন্যে নয়, কাজেই তারা চাইলে এটি এড়িয়ে যেতে পারেন। যারা বাজার থেকে সিডি কিনে এনে উইন্ডোজ সেট আপ দিয়ে থাকেন, তারা বাজার থেকে শুধু ফ্রেশ উইন্ডোজ সেভেন অপারেটিং সিস্টেমের সিডি কিনুন। কোনো ব্ল্যাক থীম ওয়ালা বা আজাইড়া অরেঞ্জ/ইয়েলো থীম ওয়ালা উইন্ডোজ সেভেনের অপারেটিং সিডি নিবেন না। উইন্ডোজ সেভেনের সর্বশেষ ভার্সন হলো “Windows seven, service pack 1.”

যেহেতু আপনি উইন্ডোজের জেনুইন ব্যবহারকারী নন সেহেতু অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করার পরেই আপনার প্রধান কাজ হবে উইন্ডোজের অটোমেটিক আপডেট ডাউনলোড বন্ধ করা। সাধারণত ডিফল্ট ভাবে উইন্ডোজের অটোমেটিক আপডেট ডাউনলোডের অপশনটি অন থাকে আর আপনাকে না জানিয়েই তা নেট থেকে আপডেট ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নেয়। ফলে যেটা হতে পারে কিছুদিনের মধ্যে আপনি মাইক্রোসফটের ব্ল্যাকলিস্টে পড়ে যেতে পারেন, ফলাফল আবার সেট আপ!

এ থেকে মুক্তির জন্য আপনি start>control panel এ গিয়ে catagory>small icons সিলেক্ট করুন।

sshot-1

এরপর একদম শেষে দেখতে পাবেন windows update নামে একটা অপশন আছে, সিলেক্ট করুন। যে উইন্ডো ওপেন হবে তার বামপাশে লিস্ট থেকে Change settings এ ক্লিক করুন

sshot-2

ড্রপডাউন মেন্যু থেকে Never check for updates সিলেক্ট করুন। Give recommended updates…… এবং Allow all users…. এ চেক বক্সে টিক চিহ্ন থাকলে উঠিয়ে দিন, ok করে বের হয়ে আসুন।

sshot-3

এরপর আবার Control Panel এ ফেরত আসুন, এখান থেকে Windows Firewall সিলেক্ট করুন, বামপাশে লিস্ট থেকে Turn Windows Firewall on or of সিলেক্ট করুন

sshot-4

নীচের ছবি অনুযায়ী Turn off Windows Firewall সিলেক্ট করে ok করুন।

sshot-5

এরপর উইন্ডোজে এ ডিফল্টভাবে Windows Defender নামক এন্টিভাইরাস ইন্সটল করা থাকে, কিন্তু এটা আমার কাছে আকাজের জিনিস ছাড়া কিছুই মনে হয়নি। আপনি চাইলে এটি অন রাখতে পারেন অথবা এই টিয়টোরিয়ালে আমি ব্যক্তিগতভাবে আপনাকে এন্টিভাইরাস recommend করবো। আসুন windows defender বন্ধ করে ফেলি। control panel থেকে windows defender সিলেক্ট করুন। windows defender বক্স ওপেন হলে, Tools সিলেক্ট করুন।

sshot-6

Tools এ গিয়ে option ক্লিক করুন।

sshot-7

এবার নীচের ছবি অনুযায়ী Administrator সিলেক্ট করে Use this program এ চেক বক্সে টিক উঠিয়ে দিয়ে save করুন

sshot-8

এরপর নীচের মতো বক্স আসলে close করুন

sshot-9

সফটওয়ার ইন্সটলেশন গাইডলাইনঃ
ব্রাউজার প্রসঙ্গঃ
অনেকদিন পিছিয়ে থাকার পরে উইন্ডোজের ডিফল্ট ব্রাউজার IE10 এ এসেছে বিশাল পরিবর্তন। আগের ভার্সনগুলোর চাইতে IE10 এ বেশ দ্রুতগতিতে ব্রাউজিং করতে পারবেন। তবে আমার ব্যক্তিগত মতামত হলো ব্রাউজিংয়ের সত্যিকার মজা পেতে চাইলে Firefox update ভার্সন ব্যবহার করা। আপনি ইচ্ছে করলে Google Chrome ও ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে আমার পরামর্শ হলো, আপনার পিসির কনফিগারেশন যদি High হয় তবেই Google Chrome ব্যবহার করতে, কারণ এটি র‍্যামের প্রচুর জায়গা খায়, যেখানে Firefox খুব সামান্য পরিমাণেই জায়গা নেয়।

এছাড়াও আপনার ইন্টারনেট কানেকশন যদি স্লো হয় তবে chrome ইন্সটল করতে গিয়ে সেটা fail হবার সম্ভাবনাও আছে। একই সমস্যা থেকে গেছে IE10 এ, হ্যাঁ বলেছিলাম এটা অপারেটিং সিস্টেমে ডিফল্ট থাকে, তবে সেটা IE8 যেটা প্রচুর স্লো। IE10 আপনাকে Microsoft Website থেকে ডাউনলোড করতে হবে, ইন্সটল দেবার পর আবার সেটা অনলাইনে আপডেট চাইবে যেটা আপনার স্লো নেটের কারণে fail হবার আশঙ্কা থেকে যায়। এদিকে Firefox একবার ডাউনলোড করেই ইন্সটল দিতে পারবেন।

আপনি যদি হন এডঅনস প্রেমী, কোনো চিন্তা নেই! বর্তমানে বেশীরভাগ এডঅনস Firefox/Google Chrome দুই ব্রাউজারের উপযোগী করেই বানানো হয়। এছাড়াও নেটে আরও অনেক ব্রাউজার পাবেন যেমনঃ Avant, Flock. K-Melon, Maxthon, Avant Browser। আপনি একজন সাধারণ ব্যবহারকারী হিসেবে এতো ব্রাউজার ইন্সটল করে পিসিতে টেম্পোরারি ফাইল বাড়ানোর প্রয়োজন নেই। নিশ্চিন্তে Firefox অথবা Google Chrome ব্যবহার করুন।

Firefox/Google Chrome ব্রাউজারের সাথে Adblock Plus এড-অনসটি ব্যবহার করুন। এতে করে বিভিন্ন ওয়েবপেইজে থাকা অপ্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপণগুলো লোড হওয়া থেকে রেহাই পাবেন আপনি। অনেক পপ-আপ উইন্ডো ওপেন হওয়াও ঠেকানো যাবে এভাবে।

sshot-21

ব্রাউজার ইন্সটল দেবার পরবর্তী ধাপঃ
উইন্ডোজ সেটআপ এবং ব্রাউজার ইন্সটল দেবার পর আপনি ইন্টারনেট ব্রাউজিং করতে গিয়ে কিছু সফটওয়ারের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করবেন। এছাড়া কিছু প্রোগ্রাম চালাতেও গিয়ে দেখবেন কিছু সফট মিসিংয়ের কারণে ওইসব প্রোগ্রাম ওপেন করতে পারছেন না! আসুন সেগুলো সমাধান করে ফেলি। ব্রাউজার ইন্সটল দেবার পরপর আপনার প্রয়োজন হবে, Adobe Flash Player, Adobe Shockwave, Java ও DirectX এর লেটেস্ট ভার্সন। মনে রাখবেন, Adobe Flash Player ও Java ইন্সটল দেয়া না থাকলে আপনি Youtube, Facebook এর মতো জনপ্রিয় সাইটগুলোতে কার্যত কোন কিছুই করতে পারবেন না। পিসিতে সবসময় এগুলোর লেটেস্ট ভার্শন ইন্সটলড রাখুন।

latest Adobe Flash Player ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন Adobe এর official website থেকে, তবে এক্ষেত্রে একটি সতর্কতা অবলম্বন করুন। নীচের ছবিতে দেখুন, উল্লিখিত জায়গায় বিভিন্ন এড দেয়া থাকে, আপনি চেক বক্সে টিক উঠিয়ে দিন।

sshot-10

এটি ইন্সটল দেয়ার পর Internet Explorer ও Mozilla Firefox এর জন্য আলাদা Adobe Flash Player ডাউনলোড করার জন্য Adobe এর Official lab সাইটে যান। এখান থেকে নীচের চিত্র অনুযায়ী দুটি ভার্সন ডাউনলোড করে নিন

sshot-11

Adobe Shockwave Player ডাউনলোড করে ইন্সটল দিয়ে নিন। এবার Java ডাউনলোডের জন্য Official website এ যান। সেখান থেকে নীচের ছবি অনুযায়ী Offline version ডাউনলোড করে ইন্সটল দিন।

sshot-12

উইন্ডোজ সেভেনের জন্য লেটেস্ট Directx 11 ডাউনলোড করে নিন Mediafire থেকে। DirectX এর লেটেস্ট সংস্করনটি ইন্সটল করা না থাকলে না থাকলে 3D ইমেজ জেনারেট করে এমন সব সফটওয়্যার ঠিকমতো কাজ করবে না।

Zip/RAR সফট নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় ভুগে থাকেন আসলে ঠিক কোনটা ইন্সটল দেবেন? আসল উত্তর হলো WinRAR। আপনার জেনে রাখা ভালো Winzip শুধু RAR ফাইল Extract করতে পারে, বানাতে পারে না। অন্যদিকে WinRAR, Zip ও RAR দুটি ফাইল ফরম্যাটেই Compress ও Extract করতে পারে। তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি 7-Zip ইন্সটল করেন। এটি ইন্সটল দিলে আপনি সারাজীবনের জন্যে আর কোন আর্কাইভিং সফটওয়্যারের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করবেন না। WinRAR আপনাকে ক্র্যাক করে ব্যবহার করতে হবে, আর 7-Zip সম্পূর্ণ ফ্রীতে পাচ্ছেন। Official Website থেকে নীচের চিত্র অনুযায়ী ডাউনলোড করে নিন।

sshot-13

কম্পিউটারের ময়লা পরিষ্কার কার্যক্রমঃ
আমাদের সবারই চিন্তা থাকে কিভাবে পিসি পরিস্কার থাকবে? পিসি এর ময়লা কিভাবে দূর করা যাবে? বিভিন্ন সফটওয়্যার আপনার পিসিতে চলার সময় যে সমস্ত টেম্পোরারী ফাইল সৃষ্টি করে সেগুলো অনেকেই জানেনা। কিছু হালকা সফটের সাহায্যে আপনি সহজেই দূর করতে পারবেন এগুলো। প্রথমেই আমি আপনাকে recommend করবো TempFileCleanerPortable সফটটি, এটি মাত্র 500 KB এর একটি Portable সফট। Mediafire থেকে ডাউনলোড করে এক ক্লিকে আপনার পিসি পরিষ্কার করে ফেলুন। এটির ব্যবহারবিধি একদম সোজা বিধায় বিস্তারিত আর বললাম না।

এছাড়াও Wise Disk Cleaner নামের আরও একটি পোর্টেবল ভার্সন সফট আপনি ব্যবহার করতে পারেন একদম সহজেই। Offical Website থেকে নীচের চিত্র অনুযায়ী ফ্রী ডাউনলোড করে নিন।

sshot-14

এবার আসা যাক Ccleaner নামক একটি বহুল জনপ্রিয় সফটওয়ারের প্রসঙ্গে। পিসির টেম্পোরারি ফাইল মোছার ক্ষেত্রে Ccleanerকে বলা হয় BOSS SOFTWARE, তবে এটি পুরোপুরি ফ্রী নয়, আপনাকে এটার ফুল ভার্সন ব্যবহার করতে হলে অর্থ খরচ করতে হবে। তবে আপনার আমার মতো সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য ফ্রী ভার্সনের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। Download করে নিন।

sshot-15

উইন্ডোজের ডিফল্টভাবে দেয়া Defragment এর চেয়ে ফ্রী Defraggler সফটটি ব্যবহার করুন।

আপনি যেকোন সফটওয়ার সরাসরি uninstall করতে পারেন উইন্ডোজের ডিফল্ট Add Remove Program থেকে। তবে এতে একটি ছোটো অসুবিধা থেকে যায়, সেটি হলো আপনার uninstall কৃত সফটটির কিছু ফাইল তখনো পিসিতে ঘাপটি মেরে থেকে যায়। যেসব সফটওয়্যারে আনইন্সটল হওয়ার পরেও হার্ডডিস্কে অপ্রয়োজনীয় ফাইল ও রেজিস্ট্রিতে Key রেখে যায় Revo Uninstaller সেসব সফটওয়্যারকেও নিমেষে আনইন্সটল করে, আনইন্সটল করে সেসব সফটওয়্যারও যেগুলো আনইন্সটল করার কোন অপশন থাকে না। যদিও এটিও পুরোপুরি ফ্রী না, কিন্তু সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য পয়সা খরচ করে ফুল ভার্সনের প্রয়োজন নেই যেখানেই ফ্রী ভার্সনে সকল কাজ হয়ে যাচ্ছে। Offical Website থেকে ডাউনলোড করে নিন।

sshot-16

গান শোনা, মুভি দেখা, ছবি দেখা এবং পড়াশোনা এবং লেখালেখির জন্য সফটঃ
আপনার গ্রফিক্স কার্ড কি HD? আপনি কি Blu-ray ডিস্ক বা HD DVD চালাবেন পিসিতে? যদি তাই হয়ে থাকেন তাহলে এই ধাপটি আপনি সযত্নে এড়িয়ে যেতে পারেন।

বেশিরভাগকেই দেখা যায় মিডিয়া প্লেয়ারের কথা আসলেই Power DVD আর WinDVD এর মতো ভারী ভারী সফটওয়্যার ইন্সটল করেন! আবার উইন্ডোজের ডিফল্ট মিডিয়া প্লেয়ারে অনেক ফাইল যেমন .mkv, .flv ফাইল চালাতে না পেরে হতাশ হয়ে না বুঝে অনেক Codec ইন্সটল দিয়ে থাকেন। অপ্রয়োজনীয় এসব কিছুই এড়িয়ে চলুন, যখন আপনার কাছেই রয়েছে VLC media player কিংবা KMPlayer. আমি ব্যক্তিগতভাবে VLC Player 1.1.11 ব্যবহার করি। ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

sshot-23

ছবি দেখার জন্য Google এর Picasa দূর্দান্ত একটি সফট। আপনার ছবিকে বহুগুণ জুম করে দেখতে এ সফটটির বিকল্প নেই!

পিসিতে বই পড়তে চাইলে আপনার প্রয়োজন হবে একটি PDF Reader. আর এজন্যে Adobe PDF Reader এর নাম হয়তো আপনি চোখ বন্ধ করে বলতে চাইবেন, তবে আমি বলবো না! Adobe PDF Reader 7 পর্যন্ত এই সফটওয়ারটির পারফরম্যান্স নিয়ে কিছু বলবো না, কিন্তু ভার্সন 8 থেকেই এটি স্লো হতে থাকে এবং সাইজে দানবাকৃতি ধারন করে। বর্তমান Adobe Reader XI (11.0.03) এর সাইজ প্রায় ৫০ মেগা। তাই পরামর্শ হচ্ছে সুখে থাকতে চাইলে Foxit Reader ব্যবহার করুন। Offical Website থেকে ডাউনলোড করে নিন।

sshot-17

লেখালেখির জন্য আপনার পিসিতে উইন্ডোজে ডিফল্টভাবে Notepad দেয়া আছে, তবে আপনি চাইলে বাজার থেকে Microsoft Office 2007 এর সিডি কিনে এনে ইন্সটল করে ব্যবহার করতে পারেন।

office_2007_enterprise_label_by_cj5-d3dikw3

উইন্ডোজ স্লো

যতোবার আমাদের উইন্ডোজ স্লো হয়ে যায় ততোবার আমরা উইন্ডোজ সেট আপ দেই। এমনও দাঁড়ায় দিনের ভেতর ৪/৫ বার সেট আপই দেয়া লাগছে! এরকম হয় কারণ, আমরা অনেকেই আসলে জানি ঠিক কি কারণে পিসি স্লো হয়ে গেছে বা যায়। পিসিতে অতিরিক্ত অদরকারী সফটওয়ারের যাচ্ছেতাই ব্যবহারের ফলে পিসি স্লো হয়ে যায়। মজার ব্যাপার হলো, সেট আপ দেবার সময় কিন্তু আমরা মনে মনে প্রতিজ্ঞা করে ফেলি, এবার পিসিতে কোনো অযথা সফটওয়ার ইন্সটল দেবো না, কিন্তু ভুলগুলো বারংবার হতেই থাকে!

এন্টিভাইরাস পরামর্শঃ
অনেকে আছেন পিসিতে কিছু গড়বড় হলেই সেটা ভাইরাসের দোহাই দিয়ে বসে থাকেন! অথচ উইন্ডোজ সেভেনে এন্টিভাইরাস খুব একটা প্রয়োজন হয় না বললেই চলে। তবু যদি আপনার এন্টিভাইরাস প্রীতি পক্ষান্তরে ভাইরাস ভীতি থেকে থাকে, তবে আমার মতামত হচ্ছে চোখ বন্ধ করে ESET Smart Security ব্যবহার করা। আমি জানি আপনি হয়তো ভাবছেন Kaspersky এর কথা কেনো আমি এড়িয়ে যাচ্ছি! কারণ এটি আপনার র‍্যামে প্রচুর জায়গা নিয়ে নেবে, অনেক ক্ষেত্রেই নিজে মাতব্বরি ফলিয়ে আপনার কোনো প্রয়োজনীয় ফাইল ডিলিট করে দেবে যেটা হয়তো আদৌ ভাইরাস ছিলো না। শুধু Kasperskyই না, অন্যসব এন্টিভাইরাসের ক্ষেত্রেও আমি একই সমস্যার অভিযোগ তুলবো যে সমস্যা আমি ESET Smart Security ব্যবহার করে পাইনি।

এটি ফ্রী নয়। নেটে ঘাঁটাঘাটি করলে হয়তো আপনি পাইরেসী করে ব্যবহার করতে পারেন, তবে সেদিকে না যাবার জন্যই আমি আপনাকে জোর পরামর্শ দেবো। বাংলাদেশ থেকেই এখন আপনি ESET Smart Security ফুল ভার্সন কিনে নিতে পারেন। যোগাযোগ official website

splash2

পিসি স্লো না রাখার আরও কিছু পরামর্শঃ
আপনি যখন একটা সফট ইন্সটল দেন, তখন আপনি ক্রমাগত next বাটন চেপে ইন্সটল দিয়ে ফেলাটাই মূল কাজ মনে করেন! অথচ আপনার উচিত সফটওয়ার ইন্সটলের সময় সবগুলো অপশন দেখে নেয়া, যেটা দরকার নেই সেটাতে টিকমার্ক উঠিয়ে দেয়া। অধিকাংশ সফটওয়্যারই ইন্সটলের সময় অপশন দেবে আপনি কি এই সফটওয়্যারের অটোমেটিক আপডেট হওয়া চান কিনা, আপনি কি চান আপনার পিসি থেকে তথ্য সে সফটওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে পাঠাক। যেমন Google Chrome ডাউনলোড দিতে গেলে নীচের ছবির মতো অপশন আসবে, আপনি সেটা এড়িয়ে শুধু সফটটাই ইন্সটল করুন।

sshot-18

এছাড়াও আরও কিছু ব্যাপার, আপনার পিসি ওপেন হবার সাথে সাথে হয়তো অনেক সফট অটো চালু হয়ে যায়, এতে পিসি পুরো পারফরম্যান্সে আসতে সময় লাগায় বেশী, শুরুতেই আপনার মনে হবে এতো স্লো! আপনি start মেন্যু থেকে All Programs>Accessories>Run চালু করুন। লিখুন msconfig এরপর ok করুন

sshot-19

এরপর যে বক্স আসবে সেখানে startup ট্যাবে যান, ওখান থেকে বেছে বেছে প্রোগ্রামগুলো uncheck করে দিন, এরপর ok করুন, আপনার পিসি রিস্টার্ট চাইবে, রিস্টার্ট দিন।

sshot-20

আপনার C ড্রাইভে অপারেটিং সিস্টেম আর সফটওয়ার ইন্সটল ছাড়া আর অন্যকিছুই রাখবেন না। সব গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ও সফটওয়্যারের ব্যাকআপ C বাদে অন্য কোন ড্রাইভে রাখুন।

আপনি যদি বাংলায় লেখালেখি করতে চান, তাহলে আপনার জন্য আছে জনপ্রিয় Avro Keyboard! ডাউনলোড করে নিন Omicron Lab থেকে।

avro-keyboard

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...